গ্রায়েম হিক: রহস্য বলবেন, নাকি প্রহেলিকা?

৬৫ টেস্টে কোনো ব্যাটসম্যান ৩১.৩২ গড়ে ৩৩৮৩ রান করেছেন, যাতে ৬টি সেঞ্চুরি ও ১৮টি ফিফটি। মোটামুটি মানের ব্যাটসম্যান, এই তো! সেই একই ব্যাটসম্যানের ফার্স্ট ক্লাস রেকর্ড গিয়ে যদি দেখেন তাঁর সেঞ্চুরির সংখ্যা ১৩৬, যার মধ্যে অপরাজিত ৪০৫ রানের একটা ইনিংসও আছে; তখন কী মনে হবে আপনার? মেলাতে পারবেন এই দুই ব্যাটসম্যানকে? গ্রায়েম হিক এমন প্রহেলিকারই নাম। কাউন্টি ক্রিকেটে তাঁর বিক্রমে 'নতুন ব্র্যাডম্যান' নাম হয়ে গিয়েছিল যাঁর, সেই হিক আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিজেকেই মেলেই ধরতে পারলেন না। বরং ক্রিকেট অভিধানে যোগ করে গেলেন নতুন একটা টার্ম, 'গ্রায়েম হিক সিনড্রোম!'

গ্রায়েম হিক: রহস্য বলবেন, নাকি প্রহেলিকা?

আবাহনী লাম্বাকে ভুলে গেছে, বেলফাস্টের নর্থডাউন ক্লাব ভোলেনি

২০১২ সালে আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি সিরিজ। কিন্তু খেলা হয়েছিল উত্তর আয়ারল্যান্ডের বেলফাস্টে। সেখানেই এক মাঠে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে গিয়ে ব্যাপারটা আবিষ্কার করে খবরটা দিয়েছিলেন বাংলাদেশ দলের শেফ ডি মিশন। রমন লাম্বা বেলফাস্টের এই নর্থডাউন ক্রিকেট ক্লাবে খেলে গেছেন। অপরাধবোধ মেশানো একটা আক্ষেপও হয়তো ছুঁয়ে গিয়েছিল আবাহনীর কর্মকর্তা আহমেদ সাজ্জাদুল আলম ববিকে। ওই ক্লাবে লাম্বার ছবি আছে, অথচ যে ক্লাবের হয়ে খেলতে গিয়ে জীবন দিলেন, সেই আবাহনী ক্লাবে নেই। সেই ক্লাবে গিয়ে আবিষ্কার করলাম অন্য এক রমন লাম্বাকে।

আবাহনী লাম্বাকে ভুলে গেছে, বেলফাস্টের নর্থডাউন ক্লাব ভোলেনি

অর্জুনা রানাতুঙ্গা ও শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটের ফার্স্ট ফ্যামিলি

হোটেল রুমের দরজা খুলে যিনি ভেতরে ঢোকার আমন্ত্রণ জানালেন, তাঁর পরনে লুঙ্গি। উর্ধ্বাঙ্গে কিছু নেই। নাম অর্জুনা রানাতুঙ্গা। পরদিন বিশ্বকাপ ফাইনাল আর তিনি, সেই ফাইনালের এক দল শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক কথা বলতে চাইতেই রুমে ডেকে নিয়ে গেছেন। 'দশ মিনিট' বলে শুরু করা কথপোকথন গড়িয়েছিল প্রায় এক ঘণ্টায়। এটাই তাঁর ক্যারিয়ারের স্মরণীয়তম মুহূর্ত কি না, এই প্রশ্নে যে টোকা পড়েছিল আবেগের তন্ত্রীতে। অর্জুনা রানাতুঙ্গা তাই স্মৃতির ভেলায় চড়ে ফিরে গিয়েছিলেন ফেলে আসা দিনগুলোতে। রানাতুঙ্গার সঙ্গে আমার জন্যও এ ছিল আশ্চর্য এক ভ্রমণ।

অর্জুনা রানাতুঙ্গা ও শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটের ফার্স্ট ফ্যামিলি

রেকর্ডটা রিচার্ডসেরই থাকুক না!

এই চাওয়াটার কথা লিখেছিলাম ২০০৬ সালে, যখন অ্যাডাম গিলক্রিস্ট মাত্র এক বলের জন্য ভিভ রিচার্ডসের দ্রুততম টেস্ট সেঞ্চুরির রেকর্ডটা ভাঙতে পারেননি। আট বছর পর মিসবাহ-উল হক রেকর্ডটা ছুঁয়ে ফেলার সময়ও মনে হয়েছিল, আমার চাওয়াটা পূরণ হয়েছে, এখনো তো এতে রিচার্ডসের নামটা আছে। এরও বছর খানেক পর ব্রেন্ডন ম্যাককালাম অবশ্য আমার চাওয়ার কোনো মূল্য দেননি। দুই বল কম লাগিয়ে প্রায় ৩০ বছর রিচার্ডসের ছায়াসঙ্গী ওই রেকর্ডটা ভেঙে দিয়েছেন। তাতে কি, রিচার্ডসের ৫৬ বলে সেঞ্চুরির বিস্তারিত তো বারবারই পড়া যায়। পড়া যায়, রিচার্ডসকে ছুঁতে ছুঁতে ছুঁতে না-পারা গিলক্রিস্টের প্রতিক্রিয়া।

রেকর্ডটা রিচার্ডসেরই থাকুক না!

সুগােই বুলাের মহাকাব্য

এমন এক ম্যাচ, যে ম্যাচে হারলে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ-স্বপ্ন আবার দুঃস্বপ্নে রূপ নেয়। ব্যাপারটি শুধু সেখানেই শেষ হয়ে যায় না। বিশ্বকাপ খেলা না হলে বাংলাদেশ ওয়ানডে স্ট্যাটাস পায় না। বিশ্বকাপ খেলা না হলে বাংলাদেশ স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে 'সম্মানের লড়াই'য়ে জেতার সুযােগ পায় না, পায় না নতুন উচ্চতায় তুলে দেওয়া পাকিস্তানের বিপক্ষে অবিস্মরণীয় সেই জয়টি এবং আরেকটু সামনের দিকে তাকান-হল্যান্ডের বিপক্ষে আকরাম খান ওই জয়টি এনে না দিলে বাংলাদেশ তিন বছরের মাথায় টেস্ট পরিবারের নতুন সদস্য হয়ে চারপাশ হাসিতে আলােকিত করে তুলতে পারে না। শুধু একটি মাত্র ইনিংসের এভাবে একটি দেশের ক্রিকেট ভবিষ্যৎ গড়ে দেওয়ার উদাহরণ ক্রিকেট ইতিহাসেই আর আছে কিনা সন্দেহ!

সুগােই বুলাের মহাকাব্য
City Group
Fortune Fortified Edible Rice Bran Oil
Kool Body Spray
Ruchi Sauce