| বিশেষ লেখা

রেকর্ডটা রিচার্ডসেরই থাকুক না!

এই চাওয়াটার কথা লিখেছিলাম ২০০৬ সালে, যখন অ্যাডাম গিলক্রিস্ট মাত্র এক বলের জন্য ভিভ রিচার্ডসের দ্রুততম টেস্ট সেঞ্চুরির রেকর্ডটা ভাঙতে পারেননি। আট বছর পর মিসবাহ-উল হক রেকর্ডটা ছুঁয়ে ফেলার সময়ও মনে হয়েছিল, আমার চাওয়াটা পূরণ হয়েছে, এখনো তো এতে রিচার্ডসের নামটা আছে। এরও বছর খানেক পর ব্রেন্ডন ম্যাককালাম অবশ্য আমার চাওয়ার কোনো মূল্য দেননি। দুই বল কম লাগিয়ে প্রায় ৩০ বছর রিচার্ডসের ছায়াসঙ্গী ওই রেকর্ডটা ভেঙে দিয়েছেন। তাতে কি, রিচার্ডসের ৫৬ বলে সেঞ্চুরির বিস্তারিত তো বারবারই পড়া যায়। পড়া যায়, রিচার্ডসকে ছুঁতে ছুঁতে ছুঁতে না-পারা গিলক্রিস্টের প্রতিক্রিয়া।

| সাক্ষাৎকার

'লারা জিনিয়াস, কিন্তু দলের সবাইকে এক সুতোয় গাঁথতে পারেনি'

এই ইন্টারভিউ তিনি খেলা ছাড়ার প্রায় ১৩ বছর পর। তাঁর কথাবার্তা, হাঁটাচলা তখনো ভালোমতোই বুঝিয়ে দেয়, তিনি ভিভ রিচার্ডস। ওয়েস্ট ইন্ডিজকে পুরনো গৌরবের যুগে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়ার চ্যালেঞ্জ নিয়ে রাজি হয়েছেন নির্বাচকমণ্ডলীর চেয়ারম্যান হতে। ২০০৪ সালে গ্রেনাডার কুইন্স পার্ক স্টেডিয়ামে নেওয়া এই ইন্টারভিউয়ে তাই খেলোয়াড় রিচার্ডস কমই এসেছেন, এটি আসলে চিফ সিলেক্টর ভিভ রিচার্ডসের সাক্ষাৎকার। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেটের অতীত-বর্তমান, ব্রায়ান লারার ভালো-মন্দ, তাঁর উত্তরসূরি এসব প্রসঙ্গে দারুণ সব কথা বলে এটাকেও মণিমাণিক্যখচিত করে তুলেছিলেন রিচার্ডস।

City Group
Fortune Fortified Edible Rice Bran Oil
Kool Body Spray
Ruchi Sauce
| সাক্ষাৎকার

সাতানব্বই সালের সেই সৌরভের সঙ্গে মিলিয়ে নিন পরের সৌরভকে

বছর দেড়েক আগে ভারতীয় দলে তাঁর রাজকীয় প্রত্যাবর্তন ঘটেছে। নিজের মাঠ ইডেন গার্ডেনে প্রথম টেস্ট খেলেছেন দুদিন আগে। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দ্বিতীয় ও তৃতীয় টেস্টের মাঝখানের বিরতিতে এই ইন্টারভিউ। নিয়েছিলাম বেহালায় সৌরভের প্রাসাদোপম বাড়িতে। রাত ১০টার দিকে শুরু হয়ে যা শেষ হয়েছিল প্রায় মধ্যরাতে! আনুষ্ঠানিক ইন্টারভিউয়ের আড়ষ্টতাকে ছাপিয়ে হয়ে উঠেছিল তুমুল আড্ডা। কখনাে সৌরভের দাদা স্নেহাশিস, কখনাে তার ভাতিজির আগমন আরও অনানুষ্ঠানিক করে তুলছিল আবহটা। এসব মিলিয়েই জীবনে এই একটাই ইন্টারভিউ, যা তুমি-তুমি করে লেখা।

আরও আসছে ...