আফিফ কত দূর যাবে, তা আফিফই জানে

নাজমূল আবেদীন ফাহিম

১৬ আগস্ট ২০২১

আফিফ কত দূর যাবে, তা আফিফই জানে

আফিফ ভালোর পথেই আছে। কিন্তু ও আসলেই কত দূর যাবে, কত উপরে উঠবে, এটা আসলে অনেকটাই ওর নিজের ওপর নির্ভর করে। ও কী স্বপ্ন দেখে, ও নিজেকে কোথায় দেখতে চায়...এসব বিষয়ের ওপর। তবে ক্রিকেটীয় সামর্থ্যের বিচারে তার অনেক দূর যাওয়ার সম্ভাবনা তো আছেই।

বাংলাদেশের যে কজন তরুণ ক্রিকেটার আমাদের নতুন দিনের স্বপ্ন দেখাচ্ছে, আফিফ হোসেন ধ্রুব তাদেরই একজন। নিঃসন্দেহে আফিফ বেশ প্রতিভাবান একজন ক্রিকেটার। ওর মধ্যে চুপচাপ পারফর্ম করে যাওয়ার একটা ব্যাপারও আছে। আমরা যদি ওর ব্যাটিংয়ের টেকনিক্যাল সাইডটা নিয়ে কথা বলি, শারীরিকভাবে অনেক বড়সড় হয়তো নয়, উচ্চতাও দানবীয় কিছু না, কিন্তু এর মধ্যেই ও শটে যেভাবে পাওয়ার জেনারেট করতে পারে, সেটা অভাবনীয়। একই রকম পাওয়ার জেনারেট করার ক্ষমতা আমরা দেখতে পাই ওয়েস্ট ইন্ডিজের নিকোলাস পুরানের খেলাতেও। একদম জায়গায় দাঁড়িয়ে শটে জোর আনার সামর্থ্য কিন্তু বেশ কঠিন। খুব বিরল একটা গুণ এটা।

আর টেকনিক্যালিও আফিফ খুব ভালো একজন ব্যাটসম্যান। চাপের মুখেও ও যে ভালো ক্রিকেট খেলতে পারে, তার প্রমাণ কিন্তু আমরা ইতোমধ্যেই পেয়েছি। ওর দ্বিতীয় ম্যাচেই জিম্বাবুয়ের সঙ্গে ৬০ রান তুলতেই ৬ উইকেট হারিয়ে ফেলেছিল বাংলাদেশ, সেখান থেকে ২৬ বলে ৫২ রানের ইনিংস খেলেছিল ও। এবারের অস্ট্রেলিয়া সিরিজেও দ্বিতীয় টি-২০তেও আরেকটা দারুণ ইনিংস (৩১ বলে ৩৭) খেলেছে।

পাশাপাশি ও কিন্তু বেশ স্কিলফুল, স্মার্ট একজন বোলার। ব্যাটসম্যান কোথায় দুর্বল, কোথায় বল করলে ব্যাটসম্যানকে সমস্যায় ফেলা যাবে...এই ব্যাপারগুলো খুব ভালো বোঝে। এ থেকেও ওর ক্রিকেট সেন্স সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায়।

যেহেতু অলরাউন্ডার, সাকিব আল হাসানের সঙ্গে একটা তুলনা চলেই আসে। তবে এখনই সাকিবের পর্যায়ে পৌঁছে গেছে ও, তা বলব না। সাকিব কিন্তু বয়সভিত্তিক দল থেকে রেগুলার পারফর্ম করে আসছে। হঠাৎ করে একদিন ভালো খেলল, ম্যাচ জিতিয়ে দিল…তা না কিন্তু। প্রায় সব সময়ই ম্যাচ জেতার পেছনে সাকিবের অবদান থাকে। তো সাকিবের সঙ্গে তুলনা করতে গেলে সবাইকেই এই ব্যাপারটা মাথায় রাখতে হবে। কেউ ধারাবাহিকভাবে যথেষ্ট ভালো করলেই কেবল এই তুলনা হতে পারে।

আফিফ হোসেন

তবে আফিফ ওই ভালোর পথেই আছে। কিন্তু ও আসলেই কত দূর যাবে, কত উপরে উঠবে, এটা আসলে অনেকটাই ওর নিজের ওপর নির্ভর করে। ও কী স্বপ্ন দেখে, ও নিজেকে কোথায় দেখতে চায়...এসব বিষয়ের ওপর। পরিবেশও এখানে বেশ বড় একটা প্রভাবক। যেমন ধরুন, যে স্কুল থেকে কোনোদিন কেউ ফার্স্ট ডিভিশনই পায়নি, সেখান থেকে প্রথম বিভাগে উত্তীর্ণ হওয়া বেশ বড় সাফল্য। আবার আরেকটা স্কুলে ফার্স্ট ডিভিশন পাওয়া কোনো বিষয়ই নয় হয়তো। তাই আফিফ নিজেকে কোন জায়গায় দেখতে চায়, এই প্রশ্নটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। ওর স্বপ্ন যদি অনেক বড় হয়, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটারদের সঙ্গে নিজেকে তুলনা করতে চায়...তবে ও এক ধরনের গোল সেট করবে। আবার, যদি কেবলমাত্র বাংলাদেশি খেলোয়াড়দের মাঝে নিজের অবস্থান করতে চায়, তাহলে ভিন্ন ধরনের লক্ষ্য নির্ধারণ করবে।

আমি ব্যক্তিগতভাবে চাইব, আফিফ যেন আন্তর্জাতিক মঞ্চে ভালো করছে, এমন খেলোয়াড়দের দেখে নিজের বারটা সেট করে। তাহলে সেটা বেশ চ্যালেঞ্জিং একটা লক্ষ্য হবে। আর আমার দৃঢ় বিশ্বাস, চ্যালেঞ্জ জয় করার মতো সামর্থ্য ওর আছে।

ও কতটুকু সুযোগ পাচ্ছে বা পাবে, এটাও খুব গুরুত্বপূর্ণ একটা প্রশ্ন। ও এখন যে জায়গায় আছে, যদি ভালো পজিশনে ব্যাটিং করার সুযোগ না পায়, ওর জন্যে উন্নতি করাটা বেশ কঠিন হয়ে যাবে। অনেক সময়ই হয়তো দলের প্রয়োজনের কথা ভেবে পছন্দমতো পজিশনে ও ব্যাটিং পায় না। কিন্তু ওর জন্য বড় ইনিংস খেলার সুযোগ পাওয়া খুব জরুরি। বড় ইনিংস মানেই বড় চ্যালেঞ্জ, আর বড় চ্যালেঞ্জ নিয়ে সফল হওয়াটাও বড় খেলোয়াড় হওয়ার জন্য জরুরি।

আফিফের কাছে এখন ধারাবাহিকতা চান নাজমূল আবেদীন ফাহিম। ছবি: বিসিবি

আর বোলিংয়ের ক্ষেত্রেও ওকে বোধ হয় একটু সুযোগ দেওয়া দরকার। আগেই বলেছি, ওর ক্রিকেট-সেন্স খুব ভালো। তো সেটা ব্যবহার করার অনুপ্রেরণা যেন থাকে, সেটা নিশ্চিত করাও গুরুত্বপূর্ণ। কোন জায়গায় খেলবে, আদৌ খেলবে কি না… এসব ব্যাপার ওর মতো তরুণ ক্রিকেটারদের অনেক সময় অনিশ্চয়তায় ফেলতে পারে। এই ব্যাপারগুলো যেন না হয়, টিম ম্যানেজমেন্টকে এই ব্যাপারটায় খেয়াল করতে হবে। হ্যাঁ, এমন হতে পারে ওরা খেলবে না, ওরা দলে থাকার আশা করা সত্ত্বেও খেলবে না…কিন্তু টিম ম্যানেজমেন্টকে ওদের সাথে সব সময় একটা ভালো সম্পর্ক রাখতে হবে, যেন ওরা হতাশ হয়ে না পড়ে।

এক্ষেত্রে আফিফকেও কিছুটা ভূমিকা নিতে হবে। ও যে ইনিংস গড়তে পারে, ভেঙে পড়া ইনিংসকে মেরামত করতে পারে, এর প্রমাণ আমরা পেয়েছি; তবে এবার ওকে ধারাবাহিকতার দিকে নজর দিতে হবে। নিজেকে গড়ে তোলার ব্যাপারে সচেতন থাকতে হবে।  নিজেকে অর্ডিনারি না ভেবে 'সামথিং ভেরি স্পেশাল' ভাবতে হবে।

কেবলমাত্র তখনই আফিফের মধ্যে যে আমরা আমাদের ব্যাটিংয়ের হাল ধরার মতো কাউকে খুঁজে পেতে চাইছি, সে প্রত্যাশা পূরণ হবে।

শেয়ার করুনঃ
আপনার মন্তব্য
আরও পড়ুন