উৎপল শুভ্র: ক্রিকেট দলের অধিনায়কত্ব করার ব্যাপারটি কখন শুরু হয়েছিল আপনার? নিশ্চয়ই খুব ছোটবেলা থেকেই?

স্টিভেন ফ্লেমিং: আমি প্রথম অধিনায়কত্ব করেছি আমার স্কুলের। এরপর বিভিন্ন বয়সভিত্তিক দের। বলতে গেলে পুরো ক্যারিয়ারেই আমি কোনো না কোনো দলের অধিনায়কত্ব করেছি। তাই জাতীয় দলের অধিনায়কত্ব পাওয়ার সময় ব্যাপারটি একবারে নতুন মনে হয়নি।

শুভ্র:আপনাকে কি সব সময়ই নিউজিল্যান্ডের ভবিষ্যৎ অধিনায়ক হিসেবে ভাবা হতো?

ফ্লেমিং: (হেসে) আমি তা বলতে পারব না। তবে আমার প্রত্যাশার চেয়েও অনেক তাড়াতাড়ি নিউজিল্যান্ডের অধিনায়কত্ব পেয়েছি আমি। যুব দলের নেতৃত্বে ভালো করাটাই হয়তো এর কারণ।

শুভ্র: নিউজিল্যান্ডের অধিনায়কত্বের খবর পাওয়ার মুহূর্তটি নিশ্চয়ই মনে আছে আপনার?

ফ্লেমিং: এটি ভোলার নয়। তবে দীর্ঘ মেয়াদে অধিনায়কত্ব পাওয়ার আগে নিয়মিত অধিনায়কের ইনজুইর সুবাদে আমি নিউজিল্যান্ডের অধিনায়কত্ব করেছি। যখন আমাকে ফুল টাইম অধিনায়ক করা হল, স্বাভাবিকভাবেই খুব উল্লসিত হয়েছিলাম আমি। তবে এখন বলব, একটু কম বয়সেই দায়িত্বটা পেয়েছি আমি, শুরুতে তাই একটু সমস্যাও হয়েছে।

শুভ্র:খেলা শুরুর সময় কে ছিলেন আপনার প্রিয় অধিনায়ক?

ফ্লেমিং: সব সময়ই আমার প্রিয় খেলোয়াড় এবং প্রিয় অধিনায়ক ছিলেন মার্টিন ক্রো। তাঁর খেলা দেখতে আমার যেমন ভালো লাগত, তেমনি তাঁর সঙ্গে সব সময়ই কথা বলে শেখার চেষ্টা করেছি আমি।

শুভ্র:হ্যামিল্টন টেস্টের সময়ও তো আপনাকে প্রায় প্রতিদিনই মার্টিন ক্রোর সঙ্গে কথা বলতে দেখলাম? (??? দাঁড়ি চিহ্ন দেওয়া যেতে পারে????)

ফ্লেমিং: হ্যাঁ, আমি সব সময়ি্ মার্টিনের সঙ্গে কথা বলতে পছন্দ করি। তিনি নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের সেরা ব্যাটসম্যান, সেরা অধিনায়ক। তাঁর কাছ থেকে যত বেশি নিতে পারি, ততই লাভ।

শুভ্র:বর্তমান বিশ্ব ক্রিকেটে আপনার প্রিয় অধিনায়ক কে?

ফ্লেমিং: স্টিভ ওয়াহ। তকে এটাও মনে রাখতে হবে আপনার দল যতটা ভালো আপনি ততটাই ভালো অধিনায়ক। স্টিভ ওয়াহর দলে দারুণ কিছু খেলোয়াড় আছে। তবে অন্য কারো্ দিকে না তাকিয়ে আমি আমার দলকে নিয়ে ভাবতে চাই। আমরা ক্রমশই উন্নতি করছি। বলতে পারেন, আমরা নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের দারুণ একটা সম্ভাবনার সময়ে আছি।

শুভ্র:অধিনায়কত্বের সেরা দিক কোনটি?

ফ্লেমিং: আমি বলব, আমাদের এই্ দলটি ক্রমশই পরিণত হচ্ছে এবং নতুন নতুন অর্জনও যোগ হচ্ছে আমাদের খাতায়। আমাদের দলে এখন অনেক কোয়ালিটি খেলোয়াড় আছে, তাদের নেতৃত্ব দেওয়াটা দারুণ ব্যাপার। এখন আমি চাইলে নতুন কিছু করার চেষ্টা করেও দেখতে পারি। নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটে নতুন ইতিহাস লেখার সুযোগ আমাদের সামনে। দ্যাটস গ্রেট!

শুভ্র:সবচেয়ে খারাপ দিক?

ফ্লেমিং: আমাদের ফর্ম এবং রেজাল্টের দিকে থেকে অনেক ওঠা-নামা হয়েছে। সব সময় ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারিনি আমরা। তবে আমাদের দলটিও ছিল তরুণ। আর এটিও একটি চ্যালেঞ্জ।

শুভ্র:মিডিয়ার সমালোচনা আপনাকে কতটা আক্রান্ত করে?

ফ্লেমিং: মিডিয়ায় কী লেখা হচ্ছে বা বলা হচ্ছে, তা একটু-আধটু খবর রাখি। তবে সেটিকে আমি খুব গুরুত্ব দিই না। আমার নিজের কিছু লক্ষ্য ঠিক করা আছে, সেগুলো অর্জনের পথও ভেবে বের করি আমিই। আমার কাছে সহ-খেলোয়াড়দের মতামতই মিডিয়ার চেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ।
………………………………..