ব্র্যাডম্যানের রেকর্ড কি আসলেই ভেঙেছে?

উৎপল শুভ্র

২৭ জুলাই ২০২১

ব্র্যাডম্যানের রেকর্ড কি আসলেই ভেঙেছে?

টেস্টে সেঞ্চুরির সংখ্যায় তাঁকে ছাড়িয়ে গেছেন অনেকেই। নির্দিষ্ট করে বললে ১৩ জন। কিন্তু ডন ব্র্যাডম্যানের রেকর্ড কি আসলেই ভেঙেছে? একটা বিবেচনায় তা তো ভাঙেইনি, কোনোদিন ভাঙবেও না।

রেকর্ডটা টিকে ছিল প্রায় ৩৫ বছর। নাকি এখনো টিকে আছে?

টিকে থাকে কীভাবে! ডন ব্র্যাডম্যানের টেস্টে সবচেয়ে বেশি সেঞ্চুরির রেকর্ড তো ভেঙে গেছে সেই ১৯৮৩ সালেই। এরপর আরও ১২ জন ব্যাটসম্যান সেঞ্চুরি-সংখ্যায় ছাড়িয়েও গেছেন তাঁকে।

হ্যাঁ, সংখ্যায় ছাড়িয়েছেন বটে, তবে শুধু সংখ্যাতেই। অন্য একটা বিবেচনায় ব্র্যাডম্যানের রেকর্ড তো এখনো অম্লান।

ব্র্যাডম্যানের ২৯ সেঞ্চুরির রেকর্ড ভাঙার পর যা মনে করিয়ে দিয়েছিলেন সুনীল গাভাস্কার নিজেই। ১৯৮৩ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দিল্লি টেস্টে স্ট্রোক ঝলমলে এক সেঞ্চুরি (১২৮ বলে ১২১) করে ব্র্যাডম্যানকে ছুঁয়েছিলেন। সেই সিরিজেরই শেষ টেস্টে অপরাজিত ২৩৬ রানের এক ইনিংস খেলে ছাড়িয়ে গিয়েছিলেন তাঁকে।

ছাড়িয়ে তো অবশ্যই গিয়েছিলেন। তবে ব্র্যাডম্যানের রেকর্ড ভেঙেছেন, এটা দাবি করাটা অন্যায় হবে বলেই মনে হয়েছিল গাভাস্কারের কাছে। কেন? কারণটা শুনুন গাভাস্কারের মুখেই, 'আমি রেকর্ড ভাঙলাম কই? ব্র্যাডম্যানের চেয়ে কম ইনিংস খেলে ২৯ সেঞ্চুরি করতে পারলে না বলা যেত, আমি রেকর্ড ভেঙেছি।'

এভাবে চিন্তা করলে ব্র্যাডম্যানের রেকর্ড আসলেই ভাঙেনি। কোনোদিন ভাঙবেও না। তাঁর ২৯তম সেঞ্চুরিটি এসেছিল ৫১তম টেস্টের ৭৯তম ইনিংসে। সেটি ৭৩ বছর আগে এই দিনেই অর্থাৎ ১৯৪৮ সালের জুলাই। এরপর গাভাস্কার ছাড়াও আরও ১২ জন ব্যাটসম্যান টেস্টে ২৯তম সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন। ব্র্যাডম্যানকে এক এবং অনন্য রাখতেই কি না সেই ২৯-এ থেমে যাননি কেউই। ম্যাথু হেইডেন ও শিবনারায়ণ চন্দরপল আরও একটি সেঞ্চুরি করেছেন, বাকিরা আরও বেশি। কিন্তু গাভাস্কারের কথামতো তা করতে কত টেস্ট আর কত ইনিংস লেগেছে, সেই হিসাব করলেই দেখা যাবে, আসলে কেউই ছাড়িয়ে যেতে পারেননি ডন ব্র্যাডম্যান নামের ওই ব্যাটিং জিনিয়াসকে।

সুনীল গাভাস্কারের ২৯ সেঞ্চুরি করতে ৮৮ ইনিংস বেশি খেলতে হয়েছিল। ব্র্যাডম্যানের পর ২৯তম সেঞ্চুরিতে দ্রুততম যে ব্যাটসম্যান, তাঁকে ব্র্যাডম্যান নিজেই তাঁর উত্তরাধিকার দিয়ে গেছেন। টেস্টে ২৯ সেঞ্চুরি করতে সেই শচীন টেন্ডুলকারেরও লেগেছে ব্র্যাডম্যানের চেয়ে ৭০ ইনিংস বেশি।

হেডিংলিতে ব্র্যাডম্যানের ২৯তম সেঞ্চুরিটি অপরাজিত ১৭৩ রানের। এরপর একটিই টেস্ট, একটিই ইনিংস। ওভালের সেই ইনিংসে দ্বিতীয় বলেই এরিক হলিস বোল্ড করে দেওয়ার কাহিনি তো সবারই জানা। ওই ইনিংসে মাত্র ৪ রান করলেই ব্যাটিং গড় হতো ঠিক ১০০। শূন্য রানে আউট হয়ে গিয়েছিলেন বলে যা ৯৯.৯৪-এ নেমে আসে। নেমেই আসে, কারণ হেডিংলির ওই সেঞ্চুরির পর ব্র্যাডম্যানের ব্যাটিং গড় ছিল ১০১.৩৯।

তাঁরা দুজন: ডন ব্র্যাডম্যানের সঙ্গে সুনীল গাভাস্কার২৯তম সেঞ্চুরির অন্য একটা মহিমাও ছিল। ইংল্যান্ডের ছুঁড়ে দেওয়া ৪০৪ রানের টার্গেট হেলায় করে ফেলে চতুর্থ ইনিংসে সবচেয়ে বেশি রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ড গড়েছিল ব্র্যাডম্যানের অস্ট্রেলিয়া। যে রেকর্ড টিকে ছিল প্রায় ২৮ বছর। কাকতালীয়ই বলতে হবে, ২৯ সেঞ্চুরির রেকর্ড 'ভেঙেছিলেন' যিনি, সবচেয়ে বেশি রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ড ভাঙাতেও তাঁর বড় ভূমিকা ছিল। ১৯৭৬ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে পোর্ট অব স্পেনে ভারতের ওই রেকর্ড গড়া জয়ে সেঞ্চুরি ছিল সুনীল গাভাস্কারের।    

সম্পর্কিত বিষয়:

শেয়ার করুনঃ
আপনার মন্তব্য
আরও পড়ুন
×